ছানার ক্ষীর

ছানার ক্ষীর

বাঙ্গালিদের খুবই পছন্দনীয় একটি মিস্টান্ন।এটা চিনি দিয়ে করা হয় কিন্তু খাটি খেজুরের গুড় স্টকে থাকায় আমি গুড় দিয়ে করেছি।

ছানা তৈরিঃ
• দুধঃ ২ লিটার
• লেবুর রসঃ ৩ টেবিলচামচ
• সুতি /মসলিন নরম কাপড়
দুধ চুলায় দিয়ে ফুটতে শুরু করলে চুলা বন্ধ করে দিন।
ভিনেগারের সাথে ২ টেবিলচামচ পানি মিশিয়ে অল্প অল্প করে দুধে মিশাতে থাকুন।দুধ ফেটে সবুজ পানি আলাদা হয়ে গেলে ছানা কাপড়ে ছেকে ফেলুন। কয়েকবার ধুয়ে নিন যাতে লেবুর টক ভাব দূর হয়ে যায়।ভাল করে না ধুলে ছানা দুধে দিলে দুধ ফেটে যেতে পারে। ঠান্ডা করে ছানার কাপড়ের পুতলি চেপে পানি বের করে উচু জায়গাতে ঝুলিয়ে রাখুন ৩০ মিনিট।

ক্ষীর তৈরিঃ

• দুধঃ ২ লিটার
• এলাচঃ ৩-৪ টি ও দারচিনিঃ ১ পীস
• বাদাম কুচিঃ ১/২ কাপ
• গুড়ো দুধঃ ১/২কাপ
•  গুড়ঃ ১কাপ বা চিনিঃ পরিমান মত বা ১ কাপ)
• কেওড়াজলঃ ১চা চামচ
• ঘি ২ টেবিলচামচ

• পোলাউর চাল গুড়োঃ ২টেবিলচামচ

দুধে এলাচ দিয়ে ঘন করে ১.৫ লিটার করুন। চাল গুড়ো দিয়ে ফুটতে দিন।বারবার নাড়ুন।গুড়ো দুধ মিশিয়ে নিন।

ছানা কিছুক্ষন হাত দিয়ে মথে নিন।একটি পাত্রে ১ টেবিলচামচ ঘি দিয়ে ছানা দিয়ে অল্প আচে ভেজে নিন।৩-৪ মিনিটের মত সময় লাগবে যাতে ছানার কাচা ঘ্রান টা চলে যায়। কিছুটা ঠাণ্ডা করে হাত দিয়ে ঝুরাঝুরা করে নিন।

(**চিনি দিলে এখন দুধে মিশিয়ে ফুটতে দিন)

এখন ছানা দুধে দিয়ে অল্প আচে ২ মিনিট রেখে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।(বেশিসময় রাখলে দুধ ফেটে যেতে পারে)

কেওড়া মিশিয়ে নিন।

অন্য পাত্রে গুড় ও ১/৪কাপ পানি দিয়ে চুলাতে দিন। গুড় গলে ফুটতে থাকলে চুলা ঠেকে নামিয়ে ক্ষীরে স্বাদ মত মিশিয়ে নিন।

প্যানে বাকি ১ টেবিলচামচ ঘি দিয়ে বাদাম দিন।হাল্কা টেলে ক্ষীরে মিশিয়ে নিন।

ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন।

 

Leave a Reply