মিস্টি ভঁরা দই

মিস্টি ভঁরা দই

একটা সময়ে বাঙ্গালীর মেহমানদারীর মেন্যুতে অন্যতম ছিল দই আর মিস্টি। এখনতো বিভিন্ন ধরনের ডেজার্ট পরিবেশন করা হয় তারপরও মনেহয় এর চাহিদা আজও অনেক বেশি।

দই আর মিস্টি কে যদি একসাথে পরিবেশন করা যায় তবে নতুণত্বও থাকবে আবার আকর্ষনীয় লাগবে।

উপকরন

  • ফুল ক্রিম দুধঃ ২লিটার(৯ কাপের মত)
  • চিনিঃ ১কাপ বা পরিমান মত
  • টক দইঃ ২কাপ
  • চমচম বা গোলাপজামুনঃ২০-২২ পিস

প্রনালি

টকদই স্ট্রেইনারে বা পাতলা কাপড়ে নিয়ে ঝুলিয়ে নিন।১ঘন্টা রেখে পানি একদম ঝরিয়ে নিন।টকদই এ পানি থাকলে বানানো দই থেকে পানি বের হবে।

দুধ বলক আসলে উচ্চ তাপে জ্বাল দিন।নাড়তে থাকুন যাতে সর না হয়।
কিছুক্ষনের মাঝেই দুধ ঘন হয়ে দেড় লিটার থেকে একটু বেশি হবে(৯কাপ থেকে ৭কাপ হবে)।চিনি দিন। আরও ৫-৬ মিনিট ফুটিয়ে নিন যাতে চিনি ভাল করে মিশে যায়। চুলা বন্ধ করুন।

দুধ অল্প ঠান্ডা করুন,দুধ হাল্কা গরম থাকব(দুধে আঙ্গুল দিলে কয়েক সেকেন্ড রাখা যাবে এমন গরম থাকবে)।

টকদই ফেটে ঘন দুধে দিয়ে ভাল করে হুইস্ক করে মিশিয়ে নিন।
এখন একটি ছেকনিতে ছেকে নিন।যাতে দানাদানা অংশ গুলো আলাদা হয়ে যায়।

চমচমগুলো টিস্যু বা কাপরের উপর রাখুন যাতে অতিরিক্ত সিরা টেনে যায়।কিন্তু ভুলেও চমচম চেপে রস বের করবেননা।

হাড়িতে বা দই পাতার পাত্রে চমচম সাজিয়ে নিন।চমচমের উপর দইয়ের মিশ্রন উপর থেকে ধালুন।ঢাকনা দিন বা ফয়েল পেচিয়ে নিন।

পদ্ধতি ১ঃ

ওভেনে ১২০ ডিগ্রী সে এ বাটিটি রেখে দের ঘন্টা বেক করুন। নাড়াচাড়া না করে তারপর ২ ঘন্টা ওভেনেই রেখে দিন।নামিয়ে ফ্রিজে রাখুন।
অথবা খালি ওভেন ১৯০ ডিগ্রী সে এ ১৫ মিনিট  প্রিহীট করুন।১৫ মিনিট পর ওভেন বন্ধ করে দইএর বাটি দিয়ে ৬-৮ ঘন্টা রেখে দিন। নামিয়ে ফ্রিজে রাখুন।

পদ্ধতি ২ঃ

গরম তাওয়াল পেচিয়ে গরম জায়গাতে(কিচেনে) ১০-১২ ঘন্টা রাখুন।এর মাঝে নাড়বেন না।(আমি যেখানে থাকি সেখানে আবহাওয়া অনেক গরম এখন তাই আমি বারান্দায় রেখে দেই)
আলহামদুলিল্লাহ দই রেডি।

পদ্ধতি ৩ঃ

একটি হাড়িতে তাওয়াল বসিয়ে তাঁর উপর দইএর পাত্র রেখে ঢেকে দিন।

এখন তাওয়াল দিয়ে দইএর পাত্র ঢেকে উপরে হাড়ির ঢাকনা দিয়ে দিন।চুলাতে খুবই কম আচে বসিয়ে দিন ২ঘন্টার জন্য।২ঘন্টা পর চুলা বন্ধ করে এভাবে কয়েকঘন্টা রাখুন।
ফ্রিজে কয়েক ঘন্টা রেখে পরিবেশন করুন।

 

 

 

Leave a Reply